সরে দাঁড়ালেন লতিফ সিদ্দিকী

প্রকাশ : ২৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৬:৫৩

জাগরণীয়া ডেস্ক

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদার সঙ্গে দেখা করে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন টাঙ্গাইল-৪ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুল লতিফ সিদ্দিকী। তবে আইন অনুযায়ী প্রতীক পাওয়ার পর নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর বিধান না থাকায় এবার স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ব্যালটে তার নাম ও প্রতীক ছাপানো হবে।

আজ ২৩ ডিসেম্বর (রবিবার) দুপুর ১২টার দিকে ঢাকার আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে এসে সিইসির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন আওয়ামী লীগের সাবেক এই সাংসদ। পরে সাংবাদিকদের কাছে নিজের প্রার্থিতা প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন তিনি। 

সিইসির সঙ্গে দেখা করার পর লতিফ সিদ্দিকী সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি আর নির্বাচন করছি না। কারণ, মাঠ নির্বাচন করার মতো সমতল নয়। মাঠ এমনই সমতল যে, পুলিশের বুটের তলে পড়তে হয়। আর সন্ত্রাসীদের লাঠির আঘাত খেতে হয়। আমার অফিস ভেঙে দিয়েছে। আমার নিরীহ লোকদের প্রতিনিয়ত গ্রেপ্তার করছে। যারা সমর্থক তাদের পুলিশ প্রতিনিয়ত টেলিফোন করে ভয় দেখাচ্ছে। এর পরেও ইলেকশন করা যায় নাকি?’

তিনি বলেন, ‘নির্বাচনটা তো বাণিজ্য নয়। আমি জীবনে অনেক নির্বাচন করেছি। ১৯৭০ সাল থেকে শুরু করেছি আজকে ২০১৮ সাল, এই রকম নির্বাচন আমার এলাকায় আমি জীবনেও দেখিনি। আমি আর শাহাজাহান সিরাজ ছিলাম দুই প্রতিপক্ষ। কিন্তু আমাদের মধ্যে এই ধরনের কোনও ঘটনা ঘটে নাই।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সিইসির সঙ্গে দেখা করেছি। কিছুই চাইনি। আমি কিছু চাওয়ার লোক না। আমি বলে আসলাম,  আপনি যে পরিচালনাটা করছেন এই পরিচালনায় আপনি ব্যর্থ। এই পরিচালনায় নির্বাচন হতে পারে না। তাই আমি মাঠ ছেড়ে দাঁড়ালাম। 

সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এখন তো আর প্রত্যাহারের সুযোগ নেই। তাই আমি সরে দাঁড়ালাম। আমি নিরীহ মানুষকে হতাহত হওয়ার সুযোগ কেনো করে দেবো? যারা হতাহত হবে তাদের দায় আমাকে নিতে হবে। আমি সেই দায় নেবো না। এটা স্বাধীনতা যুদ্ধ না যে, মুখোমুখি লড়াই করবো। যার সঙ্গে লড়াই করবো সে আমারই কর্মী কিংবা কর্মীর সন্তান। আমি কেন যাবো এই ধরনের হানাহানিতে? 

তিনি বলেন, আমি তাকে (সিইসি) বলে দিয়ে আসলাম আপনি স্বীকার করুন আর না করুন আপনি ব্যর্থ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত